মসিউর রহমান রাঙ্গা । বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ

মসিউর রহমান রাঙ্গা (জন্ম ২২ জুলাই ১৯৫৮) একজন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ এবং রংপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য। তিনি ২০১৪ সালে জাতীয় -পার্টি থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।  তিনি স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০১৮ সালের ৩ ডিসেম্বর থেকে ২৬ জুলাই ২০২০ পর্যন্ত জাতীয় পার্টির মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করেন।

মসিউর রহমান রাঙ্গা । বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ

 

মসিউর রহমান রাঙ্গা । বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ

 

প্রারম্ভিক জীবন

মসিউর রহমান রাঙ্গা ১৯৫৮ সালের ২২ জুলাই জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈতৃক বাড়ি রংপুর জেলার সদর উপজেলার দক্ষিণ গুপ্তপাড়ায়। শিক্ষাজীবনে তিনি বিকম ডিগ্রি অর্জন করেছেন। পড়ালেখা শেষ করে তিনি পরিবহন ব্যবসার সাথে যুক্ত হন। তিনি পরিবহন মালিকদের সংগঠন ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির’ সভাপতি।

রাজনৈতিক জীবন

রাঙ্গা রংপুর মহানগর জাতীয় -পার্টির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০১৪ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় -পার্টির মনোনয়নে তিনি রংপুর-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

 

মসিউর রহমান রাঙ্গা । বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ

 

সমালোচনা

রাঙ্গা ২০১৯ সালের ১০ নভেম্বর স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে নিহত বাংলাদেশী নূর হোসেনকে নেশাগ্রস্ত, ইয়াবা ও ফেন্সিডিলসেবী অভিহিত করে দেশব্যাপী সমালোচনার মুখে পড়েন। ১৯৮৭ সালের ১০ নভেম্বর বুকে ও পিঠে “স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক” শ্লোগান লিখে রাস্তায় নেমেছিলেন নূর হোসেন। মিছিলটি ঢাকার “জিরো পয়েন্ট” এলাকায় পৌঁছালে পুলিশ পুলিশের গুলিতে তিনি নিহত হন। ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাকে জাতীয় -পার্টির সব ধরনের পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।

 

মসিউর রহমান রাঙ্গা । বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ

 

জাতীয় -পার্টি

জাতীয় -পার্টি বাংলাদেশের একটি রাজনৈতিক দল। সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ ১৯৮৬ সালের ১ জানুয়ারি জাতীয় -পার্টি গঠন করেন। বর্তমানে এর মূল দল জাতীয় -পার্টি ৪-টি অংশে বিভক্ত। মূল দলের নেতা জি এম কাদের, তবে অন্য তিনটি অংশের নেতা যথাক্রমে আনোয়ার হোসেন মঞ্জু , আন্দালিব রহমান পার্থ ও কাজী জাফর আহমেদ ২০১৪ তে এরশাদ এর কাজের জন্য জাতীয় -পার্টি বিভক্ত হয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমেদ ও সাবেক মন্ত্রী মোস্তফা জামাল হায়দার নেতৃত্বে নতুন দল হয় এবং এটি ১৮ দলীয় জোটের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ১৯ দলীয় জোট হয়।

সরকার গঠন

দলটি ১৯৮৬-১৯৯০ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের ক্ষমতায় ছিল। পরে ১৯৯৬-২০০১,২০০৮-২০১৩ এবং ২০১৪-২০১৯ সালে আওয়ামী লীগের সাথে জোট সরকার গঠন করে।

আরও দেখুনঃ

মন্তব্য করুন